কোরআন পড়ার নিয়ম

কোরআন পড়ার নিয়ম

পবিত্র কোরআন শরীফের ১১৪ টি সূরা রয়েছে আয়াত রয়েছে ৬৬৬৬ টি। আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদেরকে কোরআন তেলাওয়াত করতে বলেছেন। আর কোরআন তেলাওয়াত করা মানে আল্লাহর সাথে কথা বলা। আর কোরআন পড়া অনেক সওয়াব। আমরা এখনও অনেকেই আছি কোরআন পড়াতে জানিনা আমরা অবশ্যই কোরআন পড়া শিখব। এবং আমাদের সহি ভাবে কোরআন পড়তে হবে।

কোরআন পড়ার নিয়ম

কোরআন পড়ার সময় শরীর পাক বা পবিত্রতা থাকতে হবে। ভালো ভাবে ওযু করতে হবে। অজু ছাড়া কুরআন স্পর্শ করা যাবে না। অপবিত্র অবস্থায় কোরআন না পরাই উত্তম।মুসলিম ব্যতীত যে কোন সম্প্রদায়ের মানুষ কোরআন যে কেউ যেকোনো সময় যেকোনো অবস্থায় পড়তে পারে।

কোরআন পড়ার সঠিক সময়‎

পবিত্র কোরআন শরীফ পড়ার এমন কোন নির্ধারিত সময় নেই। কিন্তু পবিত্র কোরআন শরীফে বলা হয়েছে। রাতে ঘুমাইবার আগে কোরআন শরীফ পাঠ করো তা হবে তোমাদের জন্য উত্তম। কোরআন তেলাওয়াত করার সময় ফজরের নামাজের পর। এছাড়াও কোরআন শরীফ যে কোন সময় পড়া যাবে। কিন্তু পড়তেক দিন পড়তে হবে।

পবিত্র কুরআন শরীফ কোন সময় পড়া নির্দেশ

শরীর অপবিত্র অবস্থায় কোরআন পড়া নির্দেশ।কোরআন পড়ার মতো পরিবেষ না থাকলে, ও কোরআন পড়ার সময়

মন স্থির না থাকলে এই সময় কোরআন না পড়ায় ভালো।

সহি পদ্ধতিতে কুরআন শরীফ শিক্ষা

পবিত্র কোরআন শরীফ সহি ভাবে পড়তে হয়। কোরআন শরীফ সহি পড়ার জন্য আপনাকে পড়তে হবে যে শিক্ষক সহি ভাবে কোরআন শরীফ পরে তার কাছে আপনাকে পড়তে হবে। সেই শিক্ষকের যদি প্রশিক্ষণ দেওয়া থাকে তাহলে আরো ভালো।

সহীহভাবে কুরআন শিক্ষার জন্য নিয়মিত সময় দেয়া দরকার। যদিও কম সময় হয়। প্রতিদিন শেখার মধ্যে থাকলে সহীহভাবে কুরআন শিক্ষা সহজ হবে এবং যা শেখা হবে তা আয়ত্ত্বে থাকবে।

সহি ভাবে কোরআন শরীফ পড়ার জন্য আপনাকে মস্কো করতে হবে। মস্কো করার জন্য আপনাকে একটি ভালো শিক্ষকের কাছে পড়তে হবে। মস্কো হল শিক্ষক আগে পড়বে আর ছাত্রকে শিক্ষক যেভাবে পরলো তাকে সেভাবে পড়তে হবে।

আর আপনি যদি আরবি হরফ 29 টি মুখস্ত না করেন তাহলে আমার এই আর্টিকেল থেকে মুখস্থ করতে পারেন  আলিফ বা তা? আরবি হরফ বাংলা উচ্চারণ সহ

অবশ্যই পারবেন

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.